রাস্তার পাশের বাসিন্দারা নিদ্রাহীনতার রোগী

Print Friendly, PDF & Email

ব্যস্ত রাস্তার ধারে বসবাসকারী মানুষের মধ্যে নিদ্রাহীনতা রোগ বেশি। গবেষণায় দেখা গেছে, নিদ্রাহীনতায় আক্রান্তদের ১০ শতাংশই ব্যস্ত সড়কের ৫০ মিটারের মধ্যে বসবাস করেন।

এই গবেষণাটি পরিচালনা করা হয়েছে কানাডায় ২০ লাখ মানুষের উপর। ১১ বছরেরও বেশি সময় ধরে পর্যবেক্ষণ চালিয়ে প্রাপ্ত ফলাফলের ভিত্তিতে গবেষকরা বলছেন, বায়ু দূষণ এবং যানবাহনের শব্দপূর্ণ রাস্তা মস্তিষ্কের ক্ষতিসাধন করে।

যুক্তরাজ্যের নিদ্রাহীনতা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই পর্যবেক্ষণের বিষয়ে আরো গবেষণা হওয়া উচিত তবে এমনটি হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল।

বিশ্বব্যাপী প্রায় ৫ কোটি মানুষ নিদ্রাহীনতায় ভোগে। এই রোগে যারা ভোগেন তাদের স্মৃতি হারানো বা মস্তিষ্কের ক্ষমতা কমে যাওয়ার মতো ঘটনা ঘটে। তবে বিষয়টি এখনো চিকিৎসক বা বিজ্ঞানীদের কাছে পরিষ্কার নয়। ফলে সে অর্থে কোনো চিকিৎসা এখনো নেই।

চিকিৎসা বিজ্ঞান বিষয়ক সাময়িকী ল্যানচেটে প্রকাশিত ওই গবেষণা প্রতিবেদনটি তৈরি করতে কানাডার অন্টারিও প্রদেশে ২০০১ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত ২০ লাখ মানুষকে পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে ২ লাখ ৪৩ হাজার ৬১১ জনের নিদ্রাহীনতার সমস্যা দেখা গেছে। তবে এই ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি দেখা গেছে রাস্তার পাশে বসবাসকারীদের মধ্যে।

এ ব্যাপারে অন্টারিওর গণস্বাস্থ্য কর্মকর্তা ও গবেষক ড. হং চেন বলেন, জনসংখ্যার বৃদ্ধি এবং দ্রুত নগরায়নের ফলে মানুষের আবাসন সঙ্কট প্রকট হচ্ছে। রাস্তার পাশে আবাসিক ভবন তৈরি হচ্ছে এবং মানুষ বাধ্য হয়েই সেখানে বসবাস করছে। এর ফলে নিদ্রাহীনতার মতো যে স্বাস্থ্যগত সমস্যা তৈরি হচ্ছে একসময় গণস্বাস্থ্যের জন্য তা বড় বোঝা হয়ে দাঁড়াবে।

তবে যান চলাচলের রাস্তায় বায়ু দূষণ এবং শব্দ দূষণের কারণে সৃষ্ট স্বাস্থ্য সমস্যা বুঝতে আরো গবেষণার দরকার আছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

উল্লেখ্য, নিদ্রাহীনতা থেকে মুক্তি পেতে বা এ রোগের ঝুঁকি এড়াতে ধূমপান না করা এবং নিয়মিত শরীরচর্চা ও সময়মতো স্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহণের পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।

সূত্র: বিবিসি