কর্মী ছাটাইয়ের ঘটনায় বাংলালিংক অফিস বন্ধ ঘোষণা

Print Friendly, PDF & Email

মোবাইল ফোন অপারেটর বাংলালিংকের এক কর্মীকে ছাটাই করার জের ধরে আজ দেশের সকল বাংলালিংক অফিস বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। তবে এ সময় শুধু গ্রাহক সেবা কেন্দ্র এবং কল সেন্টার খোলা থাকবে।

জানা গেছে, বাংলালিংকে ১১ বছর ধরে দায়িত্ব পালনকারী কর্মকর্তা ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকসন্স ডিপার্টমেন্টের প্রধান প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম ভুঁইয়াকে ট্রেড ইউনিয়ন করার অপরাধে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় টার্মিনেশন লেটার ধরিয়ে দেয়া হয়।

এর প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গুলশান-১ এলাকায় অবস্থিত বাংলালিংকের প্রধান কার্যালয়ের তৃতীয় তলায় চিফ টেকনিক্যাল অফিসার (সিটিও) তেরিহান এলহামিকে (মিশরের নাগরিক) দুই শতাধিক কর্মী অবরুদ্ধ করে রাখেন।

পরে পুলিশ, র‌্যাব, বাংলালিংক ইউনিয়ন কর্মকর্তা এবং ব্যবস্থাপনা পর্ষদের আলোচনা সাপেক্ষে আজ রোববার এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেওয়ার আশ্বাস দিলে এলহামকে রাত ৩টার দিকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

আজ নির্ধারিত দিনে বাংলালিংক কর্তৃপক্ষের সাথে ট্রেড ইউনিয়নের কর্মকর্তাদের বৈঠকে বসার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত তাদের কাউকে গুলশানের প্রধান কার্যালয়ে ঢুকতেই দেওয়া হয়নি।

ট্রেড ইউনিয়নের নেতারা বাংলালিংকের প্রধান কার্যালয়ের সামনে প্রতিবাদ জানালে দুপুর দুইটার পর কর্তৃপক্ষ মেইল করে দেশের সকল বাংলালিংক অফিস বন্ধ ঘোষণা করে।

এ ব্যাপারে জানতে বাংলালিংক এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের সভাপতি উজ্জ্বল পালের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমরা আজ আলোচনা করার জন্য বাংলালিংকের সিইও-এর জন্য শান্তিপূর্ণভাবে অপেক্ষা করেছি। কিন্তু সেই আলোচনায় বসেনি কর্তৃপক্ষ। উল্টো এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের সংগঠনিক সম্পাদ মোস্তাক আহমেদকে নির্যাতন করা হলে তিনি অজ্ঞান হয়ে পরেন। বর্তমানে তিনি ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।’

তিনি বলেন, ‘এ সময় শুধু গ্রাহক সেবা কেন্দ্র এবং কল সেন্টার খোলা থাকবে। আজ সন্ধ্যায় আলোচনা করে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।’