বাবা যেখানকার চা বিক্রেতা সেখানকার বিচারক মেয়ে

Print Friendly, PDF & Email

নরেন্দ্র মোদি একসময় চা বিক্রি করে জীবন-যাপন করতেন। আজ তিনিই পৃথিবীর সবচেয়ে বড় গণতান্ত্রিক দেশ ভারতের প্রধানমন্ত্রী। এবার এক চা বিক্রেতার মেয়ে দেশটির এক আদালতের বিচারক হলেন।

পাঞ্জাব রাজ্যের জলন্ধরের এক আদালত চত্বরে চা বিক্রি করে সংসার চালাতেন সুরেন্দ্র কুমার। তারই মেয়ে ওই আদালতের বিচারক হয়েছেন।

ওই মেয়ের নাম শ্রুতি। শুরু থেকেই সে পড়াশোনায় ভালো ছিল। ২৩ বছর বয়সী শ্রুতি প্রথম চান্সেই পাস করেন পাঞ্জাব সিভিল সার্ভিস (জুডিসিয়াল) পরীক্ষা। এরপর এক বছর প্রশিক্ষণ শেষে পাঞ্জাবের জলন্ধরে নাকোদার শহরের সাব-ডিভিশনার ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারকের পদে নিযুক্ত হয়েছেন। এসসি ক্যাটাগরিতে প্রথম হন শ্রুতি।

মেয়ের বিচারক হওয়ার খবরে আনন্দে কেঁদে ফেলেন চা বিক্রেতা বাবা সুরেন্দ্র কুমার। তিনি বলেন, এই দিনটির অপেক্ষাতেই ছিলাম। বিশ্বাস ছিল ও এরকম কিছু একটা করবে।

শ্রুতি বলেন, আমার কাজটা সহজ ছিল না। কিন্তু আদালত চত্বরে বাবাকে চা বিক্রি করতে দেখে মনে জেদটা চেপে গিয়েছিল। আর সেই কারণে স্বপ্নের চাকরিটা হাসিল করতে পেরেছি।

জুডিসিয়াল পরীক্ষায় প্রথম চান্সেই শ্রুতির এত বড় সাফল্যে এলাকাবাসীর মাঝে ছড়িয়ে পড়েছে উচ্ছ্বাস।